গোয়াল ঘর থেকে নিজগৃহে ঠাঁই পেলেন ৯২ বছরের বৃদ্ধা

নিজস্ব প্রতিবেদক
জেলা প্রতিনিধি
প্রকাশিত: বৃহঃস্পতিবার ২০শে জানুয়ারী ২০২২ ০৫:১৩ অপরাহ্ন
গোয়াল ঘর থেকে নিজগৃহে ঠাঁই পেলেন ৯২ বছরের বৃদ্ধা

ছেলে ও বউমার অত্যাচারে গোয়াল ঘরে থাকা ৯২ বছরের এক বৃদ্ধ মা ফিরে পেয়েছেন তার নিজ গৃহ। ১১দিন গোয়াল ঘরে বাস করার পর প্রশাসনের হস্তক্ষেপে বুধবার (১৯জানুয়ারি) দুপুরে শাহাজাদী বেগম ফিরে পান তার নিজ ঘর। ঘটনাটি ঘটেছে কালিয়া উপজেলার বাবরা হাচলা ইউনিয়নের কাঞ্চনপুর গ্রামে।


প্রশাসন ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, কাঞ্চনপুর গ্রামের মৃত আবুল হোসেন শেখের স্ত্রী শাহাজাদী বেগমের দুই ছেলে রফিকুল শেখ (৫০) ও শরিফুল শেখ (৪৫) তাদের মা সহ একটি ঘরের তিনটি রুমে আলাদা ভাবে বসবাস করতেন। দুই ভাইয়ের জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে গত ৭ জানুয়ারি ছোটভাই শরিফুল শেখ ও তার স্ত্রী মিলে বৃদ্ধা শাহাজাদী বেগম ও বড় ভাই রফিকুল শেখকে ২টি শিশু সন্তানসহ জোরপূর্বক ঘর থেকে নামিয়ে দেয়। উপায়ন্তর না পেয়ে বৃদ্ধা মা ও শিশু সন্তানদের নিয়ে বাড়ির পাশের গোয়াল ঘরে আশ্রয় নেন ভাই রফিকুল শেখ।


তীব্র শীতে বৃদ্ধা মায়ের গোয়াল ঘরে বসবাসের খবর কালিয়া উপজেলা প্রশাসনের নজরে আসলে গত বুধবার (১৯জানুয়ারি) দুপুরের পর তারা ওই বাড়িতে আসেন। শরিফুল শেখ ও তার স্ত্রীকে দীর্ঘ সময় ধরে বুঝিয়ে বৃদ্ধা মাসহ পরিবারের সকলকে বসত ঘরে তুলে দেন।


বৃদ্ধা শাহাজাদী বেগম জানান, ‘আমার ছোট ছেলে ও বিটার বউ আমারে, বড় ছেলে ও পুতাদের ঘর থেকে তাড়িয়ে গোয়াল ঘরে থাকতে দিছিলো। যারা আমারে আবারো ঘরে থাকতি ঠিক করে দিছে, আল্লাহ তাদের ভাল রাখুক।’


কালিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আরিফুল ইসলাম বলেন, দুই ভাইয়ের মধ্যে পারিবারিক জমিজমা সংক্রান্ত ঝামেলা রয়েছে। তার সূত্রধরে ছোট ভাই শরিফুল শেখ বৃদ্ধা মা ও তার বড় ভাইকে ঘর থেকে বের করে দিয়েছিলো। তারা উপায় না পেয়ে গোয়াল ঘরে থাকতে শুরু করেছিলো। বিষয়টি খুবই অমানবিক। আমরা জানার পর আজই তাদের ঘরে বসবাসের ব্যবস্থা করে দিয়েছি।