জবি শিক্ষক সমিতির নির্বাচন: জয় বাংলা শিক্ষক সমাজের মিডিয়া বান্ধব ইশতেহার

নিজস্ব প্রতিবেদক
মুজাহিদ বিল্লাহ
প্রকাশিত: রবিবার ২৬শে জানুয়ারী ২০২০ ০৭:২১ অপরাহ্ন
জবি শিক্ষক সমিতির নির্বাচন: জয় বাংলা শিক্ষক সমাজের মিডিয়া বান্ধব ইশতেহার

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়(জবি) শিক্ষক সমিতি কার্যনির্বাহী পরিষদের নির্বাচন আগামী ২৮ জানুয়ারী। এই নির্বাচনকে ঘিরে চলছে ব্যাপক প্রচার প্রচারনা। রোববার(২৬ জানুয়ারী) জয় বাংলা শিক্ষক সমাজ কতৃক মনোনীত অধ্যাপক ড. মিল্টন বিশ্বাস  শিক্ষক,শিক্ষার্থী, কর্মচারী এবং মিডিয়া বান্ধব নির্বাচনী ইশতেহার প্রকাশ করেছে।

ইশতেহারে উল্লেখ্য করেন, বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে ক্ষমতাসীন দলের শিক্ষকরা নিজের মধ্যে দলাদলি ও বঙ্গবন্ধুর আদর্শকে নিয়ে টানা হেঁচড়া শুরু করেছেন। তাদের  ভিন্ন মতাদর্শদের কারণে গ্রুপিং করে পৃথক প্যানেল দিয়ে নির্বাচন করেছেন। এই নোংরা গ্রুপিং থেকে উত্তরণের লক্ষ্যে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রকৃত বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ধারণকারী অসাম্প্রদায়িক শিক্ষকদের নিয়ে গঠিত হয়েছে জয় বাংলা শিক্ষক সমাজ। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ‘থিংক ট্যাংকার’ হিসেবে কাজ করা এ সংগঠানের পক্ষ থেকে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির কার্যনির্বাহী পরিষদ নির্বাচনে অধ্যাপক ড. মিল্টন বিশ্বাসকে মনোনিত করা হয়েছে।  

নির্বাচনে জয় বাংলা শিক্ষক সমাজের পক্ষ থেকে মনোনিত মিল্টন বিশ্বাসকে নির্বাচিত করা হলে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ চর্চা ও শিক্ষকদের দাবী আদায়ে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার পাশাপাশি মুজিববর্ষ উদযাপন করার পরিকল্পনা,বিশ্ববিদ্যালয় প্রাঙ্গনে বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য নির্মান ,গবেষনার বরাদ্দ বৃ্দ্ধি করার কার্যকর উদ্যোগ, মিডিয়ায় শিক্ষকদের মতামত ব্যক্ত করতে উৎসাহী করা এবং বিশ্ববিদ্যালয়য়ের সংকট নিরসনে দ্রুত কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহন করার কথা উল্লেখ্য করেন।

উল্লেখ্য,  ১৫ সদস্যবিশিষ্ট কার্যনির্বাহী কমিটি গঠনের লক্ষ্যে প্রত্যেক পদে ২জন করে অংশগ্রহন করলেও সভাপতি পদে ৩ জন শিক্ষক অংশগ্রহন করেছেন। জয় বাংলা শিক্ষক সমাজের পক্ষ থেকে সভাপতি পদে লড়ছেন বাংলা বিভাগের অধ্যাপক ড. মিল্টন বিশ্বাস এবং ক্ষমতাসীন নীল দলের দুই প্যানেল থেকে সভাপতি পদে লড়ছেন পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড.মোঃ নূরে আলম আব্দুলাহ এবং একাউন্টিং এবং ইনফরমেশন সিস্টেম বিভাগের অধ্যাপক ড. মোঃ শওকত জাহাঙ্গীর। এছাড়াও সহ-সভাপতি পদে ২জন, সাধারণ সম্পাদক পদে ২ জন, যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক পদে ২জন , কোষাধ্যক্ষ পদে ২ জন এবং সদস্য পদে ২০ জন শিক্ষক নির্বাচনে অংশগ্রহন করছেন। নির্বাচনে ৬ টি পদে মোট  ৩১ জন পদ শিক্ষক প্রতিন্দিতা করেছেন। এদের মধ্যে থেকে ১৫ জন নির্বাচিত হবেন। সদস্যপদে ১০ ছাড়া বাকি ৫ পদে একজন করে নির্বাচিত হবেন।  মোট ভোটার ৬৭৮ জন।

ইনিউজ ৭১/টি.টি. রাকিব