ভূরুঙ্গামারীতে প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তার বিরুদ্ধে নানা অনিয়মের অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক
শামসুজ্জোহা সুজন, থানা প্রতিনিধি
প্রকাশিত: বুধবার ২৩শে ডিসেম্বর ২০২০ ০৮:৪৪ পূর্বাহ্ন
ভূরুঙ্গামারীতে প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তার বিরুদ্ধে নানা অনিয়মের অভিযোগ

কুড়িগ্রামের ভূরুঙ্গামারীর উপজেলার প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তার বিরুদ্ধে দায়িত্বে অবহেলার অভিযোগে সংশ্লিষ্ট দপ্তর সহ দুর্নীতি দমন কমিশনে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন এক ব্যক্তি। গত ৫ ডিসেম্বর তারিখে দায়ের করা ওই ব্যক্তির লিখিত অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা জ্যোতির্ময় চন্দ্র সরকার ২০১৭ সালের ১৭ জানুয়ারী তারিখে ভূরুঙ্গামারী উপজেলায় যোগদান করেন।

যোগদানের পর থেকেই তিনি রহস্যজনক কারণে নিয়মিত কর্মস্থলে আসেন না। প্রত্যেক মাসের কোনো এক সপ্তাহে ২/৩ দিনের জন্য রংপুর থেকে ভূরুঙ্গামারী এসে দাপ্তরিক কাজ-কর্ম সারেন। অফিসের একজন কর্মচারী অফিসিয়াল কাগজ প্রস্তুত করে রংপুরে তার বাসায় গিয়ে স্বাক্ষর করিয়ে আনেন। তার দীর্ঘ অনুপস্থিতির কারণে দাপ্তরিক কার্যক্রম বাধাগ্রস্থ হচ্ছে।

অভিযোগে আরো বলা হয় উপজেলার পাটেশ্বরী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দপ্তরী কাম নৈশ প্রহরী রাব্বী আহমেদকে আইন বহির্ভুতভাবে ডেপুটেশনে এনে শিক্ষা অফিসের কম্পিউটার অপারেটরের কাজ করানো হচ্ছে। এছাড়া তাকে দিয়েই বদলি বাণিজ্য, শিক্ষকদের উচ্চতর স্কেল প্রদান ও সকল প্রকার দাপ্তরিক কাজে অবৈধ লেনদেনের অভিযোগ উঠেছে। ভয়ে শিক্ষা কর্মকর্তার বিরুদ্ধে কেউ মুখ খুলছেন না। উপজেলার প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের মাঝে একে ধরণের চাপা ক্ষোভ বিরাজ করছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ভুক্তভোগী কয়েকজন শিক্ষক জানান, বিভিন্ন কাজে তারা হয়রানীর শিকার হচ্ছেন। তারা আরো বলেন, আমাদের শিক্ষা অফিসার নিয়মিত অফিস না করায় আমরা মারাত্মক অসুবিধার সম্মুখীন হচ্ছি। তারা ওই শিক্ষা কর্মকর্তার দ্রুত বদলী সহ দপ্তরী কাম নৈশ প্রহরী রাব্বীকে অফিস থেকে দ্রুত সরিয়ে নেয়ার জন্য সংশ্লিষ্ট উর্দ্ধতন কর্মকর্তার নিকট জোর দাবী  জানান।

উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা জ্যোতির্ময় চন্দ্র সরকারের ব্যক্তিগত মোবাইলে একাধিকবার চেষ্টা করে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দীপক কুমার দেব শর্মা জানান, শুনেছি শিক্ষা অফিসার জ্যোতির্ময় চন্দ্র সরকার অসুস্থ্য। জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসারের সাথে আলোচনা করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।