বৃহস্পতিবার, ২৭ এপ্রিল ২০১৭ , ১৪ বৈশাখ ১৪২৪

পটুয়াখালী শিক্ষা প্রকৌশল অধিপ্তরের উন্নয়ন কার্যক্রম এগিয়ে চলছে

12 Jan 2017 11:02 AM


পটুয়াখালী প্রতিনিধি ॥ ‘শিক্ষা নিয়ে গড়ব দেশ শেখ হাসিনার বাংলাদেশ’ এই শ্লোগান নিয়ে শিক্ষা প্রকৌশলী অধিদপ্তর পটুয়াখালী জোন শিক্ষার উন্নত পরিবেশ সৃষ্টিই শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তর এর মূল লক্ষ্য।
শিক্ষা জাতীর মেরুদন্ড শিক্ষা ছাড়া কোন জাতি উন্নতি লাভ করতে পারে না হাজারো বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান স্বাধীনতাত্তোর যুদ্ধবিধ্বস্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নির্মাণ পুনঃনির্মাণ ও মেরামতের লক্ষ্যে ১৯৭২ সালে দেশে একটি প্রকৌশল ইউনিট গঠনে প্রয়োজনীয়তা অনুভব করেন। উহার ধারাবাহিকতায় শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীনে সাবেক ফ্যাসিলিটিজ ডিপার্টমেন্ট তথা আজকের শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের সৃষ্টি। বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়ার প্রত্যয়ে দেশের প্রতিটি মানুষকে নিরক্ষরতার অভিশাপ থেকে মুক্ত করতে কাজ শুরু করেন। এই লক্ষ্যে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ভৌত অবকাঠামো উন্নয়ন কর্মকান্ড বাংলাদেশের সামাজিক অর্থনৈতিক ও বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচিতে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার পায় শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তর বর্তমান গণতান্ত্রিক সরকারের শিক্ষা প্রকৌশল বিভাগের চলমান উল্লেখযোগ্য কতিপয় প্রকল্পের বিবরণ- সারাদেশে নির্বাচিত ৩ হাজার বেসরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয় পয়ঃপ্রণালী, বৈদ্যুতিক কাজ ও আসবাবপত্রসহ ৪তলা ভীত বিশিষ্ট একাডেমিক নির্মাণ। সারা দেশে মাদ্রারাসা শিক্ষার উন্নয়নে ছাত্র-ছাত্রীদের উন্নত পরিবেশে লেখাপড়ার জন্য ১ হাজার মাদ্রাসার পয়ঃপ্রণালি, বৈদ্যুতিক কাজ ও আসবাবপত্র সহ ৪তলা ভীত বিশিষ্ট একাডেমিক নির্মাণ। নির্মাণ ভবন গুলির প্রতিটিতে ৩টি শ্রেণী কক্ষ একটি অধুনিক ওয়াস ব্লক রয়েছে। ৩টি শ্রেণী কক্ষে ১৮০জন শিক্ষার্থী লেখাপড়ার সুবিধা পায়। ৩১৫ টি উপজেলায় সদরে বিদ্যমান ১টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে মডেল বিদ্যালয় রুপান্তরের কাজ চলছে। 
এছাড়া পটুয়াখালী জেলায় ১২টি উপজেলা সদরের ১২টি বেসরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ৪তলা ভীত বিশিষ্ট একাডেমিক ভবন কাম সাইক্লোন শেল্টার নির্মাণ করা হয়েছে। প্রতিবন্ধিদের উঠানামার সুবিধার্থে র‌্যামের ব্যবস্থাসহ দুযোর্গপূর্ণ আবহাওয়া জ্বলোচ্ছ্বাস ও ঘূর্ণিঝড়ের সময় আশ্রয়কেন্দ্র হিসেবে ব্যবহ্নত হবে। প্রতিটি বিদ্যালয় ৮টি শ্রেণী কক্ষে ৪৮০জন শিক্ষার্থী উন্নত পরিবেশে কম্পিউটারসহ আধুনিক মাল্টিমিডিয়া সুবিধা প্রাপ্ত হবে। ১৫০০বেসরকারি কলেজে তথ্য প্রযুক্তি সহতায় শিক্ষার মান উন্নয়নের লক্ষ্যে প্রতিটি কলেজে ১টি ক্যান্টিন ১টি শিক্ষক মিলয়নায়তন ১টি আইসিটি ল্যাব ১টি পরীক্ষার হল নির্মাণ করার প্রকল্প। 
চলমান পটুয়াখালী জেলায় ২টি পোষ্ট গ্রাজুয়েট কলেজের প্রতিটিতে ১টি করে ১০০ আসন বিশিষ্ট ছাত্রী নিবাস ও ১টি করে একাডেমিক কাম-পরীক্ষার হল নির্মাণ করা হচ্ছে। বেকার সমস্যা সমাধানে বর্তমান সরকার কারিগরি শিক্ষার বিস্তারে ১০০টি উপজেলায় ১টি করে টেকনিক্যাল স্কুল  ও কলেজ স্থাপনের নিমিত্তে পটুয়াখালী জেলার গলাচিপায় ১০ কোটি টাকা ব্যয়ে টেকনিক্যাল স্কুল  ও কলেজ নির্মাণ হচ্ছে এতে এলাকার শিক্ষার্থীরা হাতে কলমে শিক্ষার মধ্যমে দক্ষ জনশক্তিতে পরিণত হবে।
এ ব্যাপারে শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তর, পটুয়াখালীর নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ আসাদুজ্জামান বলেন, বর্তমান সরকারের আমলে শিক্ষা ক্ষেত্রে ব্যাপক উন্নয়নসাধিত হয়েছে। পাশাপাশি স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা ও কারিগরির জন্য ভবন নির্মাণের কাজ এগিয়ে চলছে। আমরা আশা করি কাজগুলো ধারাবাহিকভাবে সম্পন্ন হলে শিক্ষাক্ষেত্রে বিপ্লব সাধিত হবে। তিনি আরও বলেন, বর্তমান সরকারের বাস্তবায়িত প্রকল্প সমূহ উন্নয়ন মেলায় বিভিন্ন ফেস্টুন, লিফলেট ও প্রজেক্টরের মাধ্যমে তুলে ধরা হয়েছে।

 

লগইন করুন


পাঠকের মন্তব্য ( 0 )